প্রতিষ্ঠানের ইতিহাস

প্রতিষ্ঠানের ইতিহাস-

পরীক্ষার্থী নয় শিক্ষার্থী তৈরীর মূলমন্ত্রে আমরা বিশ^াসী। মানুষ তার প্রজন্মক্রমিক অর্জিত অভিজ্ঞতাকে যাচাই-বাছাই,বিচার-বিশ্লেষণ করে জ্ঞান রূপে সংরক্ষণ করে। আর পূর্ব প্রজন্মের লব্ধ জ্ঞানকে আহরণ করার পদ্ধতি হচ্ছে শিক্ষা। জ্ঞানার্জন শিক্ষার একটি প্রধান ও মৌলিক লক্ষ্য হলেও আধুনিক কালে শিক্ষা ব্যবস্থার আরও একটি মহৎ লক্ষ্য আছে, তা হলো বিকাশ-ব্যক্তির সামগ্রিক বিকাশ,সৃজনশীলতা ও মননশীলতার বিকাশ। জ্ঞান গুরু-শিষ্য পরস্পরায় লাভ করা সম্ভব হলেও , ব্যক্তিত্বের নানামূখী বিকাশের জন্য চাই অনুক’ল পরিবেশ তথা উপযুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আমাদের দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার নানামূখী অবক্ষয়ের ফলে অনেকের মধ্যে এমন ধারনা বদ্ধমূল হয়েছে যে, সার্টিফিকেট অর্জনই শিক্ষা লাভের সমার্থক। আর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলো সার্টিফিকেট অর্জনের নিমিত্ত মাত্র। গুানুগতিক এ ধারনার বাইরে দেশের ভবিষ্যত নাগরিকদের সুনাগরিক , নেতৃত্বের গুণ সম্পন্ন আলোকিত ও সত্যিকার অর্থে শিক্ষিত করে গড়ে তোলার প্রয়োজনে তাদের বিচিত্রমুখী বিকাশের কেন্দ্র হিসেবেই আমরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে গণ্য করি। এ্যাফেক রেসিডেনসিয়াল মডেল স্কুল তার প্রঙ্গনে প্রতিষ্ঠা করেছে উদার ও বিজ্ঞান ভিত্তিক , ব্যক্তিত্ব বিকাশে সহায়ক সুশৃঙ্খল ,ফলপ্রসু ও বাস্তব মুখী শিক্ষা আয়োজন। যার ফলশ্রুতিতে আমরা বিশ^াস করি,‘আমরা করব জয় নিশ্চয়’।